হোম আন্তর্জাতিক যুক্তরাষ্ট্র ও চীন একমত তাইওয়ান ইস্যুতে

যুক্তরাষ্ট্র ও চীন একমত তাইওয়ান ইস্যুতে

অনলাইন ডেস্ক 06 Oct, 2021 8:38 PM

যুক্তরাষ্ট্র-ও-চীন-একমত-তাইওয়ান-ইস্যুতে-2021-10-06-615db4d686bb3.jpg

তাইওয়ান ইস্যুতে চুক্তি মেনে চলতে একমত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাইডেন ও চীনের প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং। মঙ্গলবার দুই দেশের প্রেসিডেন্ট ফোনে কথা বলার মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তে সম্মত হয়েছেন। হোয়াইট হাউজের এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

তাইওয়ান রিলেশনস অ্যাক্ট নামের এই চুক্তি অনুযায়ী, ওয়াশিংটন বেইজিংয়ের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক রাখবে। এছাড়া তাইওয়ানের ভবিষ্যৎ, শান্তিপূর্ণ উপায়ে নির্ধারণের কথা বলা হয়েছে সে সময়।

বাইডেন জানান, ‘আমি সি চিন পিংয়ের সঙ্গে তাইওয়ান নিয়ে কথা বলেছি। আমরা সম্মত হয়েছি, তাইওয়ান চুক্তি মেনে চলব।’ ‘আমি মনে করি, তিনি (চীনা প্রেসিডেন্ট) চুক্তির অন্যথা করবেন না।’

তাইপে ও বেইজিংয়ের মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনায় বরাবরের মতো বেইজিংকে দোষারোপ করে আসছে তাইওয়ান। অন্যদিকে, তাইওয়ানের সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধির জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করছে চীন।

অন্যদিকে তাইওয়ানকে নিজেদের ভূখণ্ড বলে মনে করে চীন। কিন্তু তাইওয়ান দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে দাবি করে আসছে।

এছাড়াও বিভন্ন সময়ে তাইওয়ানের আকাশসীমায় চীনা যুদ্ধবিমানের অনুপ্রবেশ নিয়ে প্রায়ই অভিযোগ আসে। গত কয়েকদিনে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা সীমানায় প্রায় ১৫০টি যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছে চীন।

সবশেষ পাঠানো বিমানবহরে ৩৪টি জে-১৬ যুদ্ধবিমান ও পারমাণবিক অস্ত্র বহনে সক্ষম ১২টি এইচ-৬ বোমারু বিমান ছিল বলে অভিযোগ তাইওয়ানের। স্থানীয় সময় গত সোমবার চারটি চীনা যুদ্ধবিমান প্রাতাস দ্বীপের পাশ দিয়ে উড়ে যায়। তাইওয়ান সরকারের দাবি, প্রাতাস দ্বীপ তাদের নিয়ন্ত্রিত এলাকা।



যুক্তরাষ্ট্র গত রোববার চীনকে তাইওয়ানের কাছাকাছি বেইজিংয়ের সামরিক তৎপরতা বন্ধ করার আহ্বান জানায়। এর আগে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী চিউ কুও চেং মন্তব্য করেছিলেন যে, ৪০ বছরের মধ্যে চীনের সঙ্গে তাইওয়ানের সামরিক উত্তেজনা সবচেয়ে খারাপ পর্যায়ে পৌঁছেছে।
 


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ