হোম বাংলার সংবাদ ছোনকা হাইস্কুলের শিক্ষক সোলায়মান আলীর সরকারী বিধি মোতাবেক আজ বিদায়

ছোনকা হাইস্কুলের শিক্ষক সোলায়মান আলীর সরকারী বিধি মোতাবেক আজ বিদায়

মোঃ নজরুল ইসলাম জাকি 27 Feb, 2021 3:22 PM

ছোনকা-হাইস্কুলের-শিক্ষক-সোলায়মান-আলীর-সরকারী-বিধি-মোতাবেক-আজ-বিদায়-2021-02-27-603a0f6d3ea85.JPG

বগুড়ার শেরপুরের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যা প্রতিষ্ঠান ছোনকা দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক স.ম. সোলায়মান আলীর সরকারী বিধি মোতাবেক আজ বিদায় দেওয়া হলো।

শনিবার( ২৭ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ১২ ঘটিকার সময় বিদায় অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয় ছোনকা হাইস্কুলের অফিস কক্ষে। এ সময় বিদ্যালয়ের সভাপতি ফেরদৌস জামান মুকুল, প্রধান শিক্ষক এ এস এম রশিদুল হাসান সহ  বিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও কিছু ছাত্র/ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।

উপস্থিতি ব্যাক্তিগণের মধ্যে ছোনকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক নওয়াব আলী, ছোনকা হাইস্কুলের সাবেক শিক্ষক আমজাদ হোসেন, ছোনকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম তরুন, আলতাব আলী আম্বইল সহ গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ  ছিলেন।

এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ.এস.এম রশিদুল হাসান বিদায়ী স্যারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনার এ বিদায়ের ফলে আমাদের যে অপূরনীয় ক্ষতি হলো তা হয়ত আর পূরন হবেনা। আপনার  বিদায় সরকারি বিধি মোতাবেক হয়েছে। কিন্তু আপনি এলাকারই সন্তান ্ আপনার যখন মনে চাইবে তখনই বিদ্যালয়ে আসবেন। আমাদের বিভিন্নভাবে পরামর্শ দিয়ে বিদ্যালয়ের মর্যাদা বৃদ্ধি করবেন এবং কর্মময় জীবনে যদি ভুল করে থাকি তবে তা ক্ষমা করে দিবেন। বিদায়ী শিক্ষককে সুস্থ্যতার সাথে দীর্ঘজিবি কামনা করেন।

 বিদ্যালয়ের সভাপতি ফেরদৌস জামান মুকুল বলেন, আপনার সাথে কাজ করার সৌভাগ্য হয়েছে আমার মাত্র তিন বছর। এ দ্বায়িত্বকালিন সময়ে যদি আপনার কাছে কোন অন্যায় করে থাকি তবে ক্ষমা করে দিবেন। 

 এছাড়া বিদ্যালয়ের শিক্ষক শেখ আব্দুস সেলিম নিজের বক্তৃতায় বিদায়ী শিক্ষক সোলায়মান আলী স্যারের সাথে কাটানো মূহূর্তগুলো  তুলে ধরে এক আবেগঘন পরিবেশ তৈরী করেন।

বিদায়ী শিক্ষক সোলায়মান আলী বিদায়ী বক্তৃতায় অত্যান্ত আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, এই স্কুলের সাবেক সভাপতি মোসলেম উদ্দিন সরকার, সাবেক প্রধান শিক্ষক এন্তাজ আলী সহ যারা এ স্কুলের জন্য অবদান রেখেছেন তাদেরকে স্মরন করেন।উপস্থিত সকলের কাছে নিজের ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়ে নেন এবং অবসরকালিন সময়ে যেন  সুস্থ্যভাবে বেঁচে থাকতে পারেন সে জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

অনুষ্ঠান শেষে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তাকে বিদায়ী ক্রেষ্ট উপহার ও পোশাক উপহার দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, বিদায়ী শিক্ষক সোলায়মান আলী ২৮ ফ্রেবুয়ারী ১৯৮৭ সালে স্কুলে শিক্ষক হিসাবে যোগ দেন।দীর্ঘ ৩৪ বছর চাকুরী জীবন শেষে সরকারি বিধি মোতাবেক আজ অবসর গ্রহন করলেন।৯০ এর দশকের ছাত্র/ছাত্রীদের শেষ বিদায়ী শিক্ষক তিনি।


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ