হোম বাংলার সংবাদ ফেনীতে গরম খেজুরের রসে ঝলসে গেল দাদা-নাতি

ফেনীতে গরম খেজুরের রসে ঝলসে গেল দাদা-নাতি

মো: ওমর ফারুক || ফেনী প্রতিনিধি 24 Jan, 2021 12:18 PM

ফেনীতে-গরম-খেজুরের-রসে-ঝলসে-গেল-দাদা-নাতি-2021-01-24-600d1146df507.jpg

ফেনীতে গরম খেজুরের রসের পাত্রে পডে সাত মাস বয়সী আশরাফুল নামক এক শিশুর শরীর ঝলসে গেছে। গরম পাত্রে হাত ঢুকিয়ে তাকে উদ্বার করতে গিয়ে দাদা আবুল হোসেনেরও দু হাত ঝলসে যায়।

শনিবার বিকালে জেলার সোনাগাজী উপজেলাধীন চরদরবেশ ইউনিয়নের দক্ষিণ চরদরবেশ এলাকার আবুল হোসেনের বাডিতে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা দাদা-নাতি উভয়কে উদ্বার করে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দাদা-নাতি কে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বান ইউনিটে প্রেরন করেন। তবে নাতি আশরাফুলের অবস্থা আশংকাজনক।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিনভর গাছিদের নিকট থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করেন আবুল হোসেন। সে রস দিয়ে পাঠালি গুড তৈরী করার জন্য একটি বড পাত্রে আগুনে ঝাল দেন আবুল হোসেনের স্ত্রী। এ সময় দাদা আবুল হোসেন তার সাত মাস বয়সী নাতি আশরাফুল কে কোলে নিয়ে চুলার পাশে দাডিয়েছিলেন। অসাবধানতা বশত দাদার কোল থেকে গরম রসের হাডিতে পডে যায় নাতি। এতে করে তার মুখমণ্ডল সহ শরীরের ৪০ শতাংশ ঝলসে যায়। সাথে সাথে দাদা আবুল হোসেন দুহাত পাত্রে চুবিয়ে নাতিকে উপরে তুলেন। এতে দাদা আবুল হোসেনের দুহাত আগুনে ঝলসে যায়।

সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক সাদেকুল করিম জানান, গরম রসে শিশুটির মাথা মুখমণ্ডল সহ প্রায় ৪০ শতাংশ ঝলসে গেছে, এবং আবুল হোসেনের ও দুহাত সহ শরীরের ১০ শতাংশ ঝলসে গেছে। তবে শিশুটির অবস্থা আশংকাজনক। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য দাদা-নাতি উভয়কে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বান ইউনিটে প্রেরন করা হয়েছে। 


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ