হোম বিশেষ সংবাদ কেন এভাবে বদলে যাচ্ছে আমাদের পৃথিবী?

কেন এভাবে বদলে যাচ্ছে আমাদের পৃথিবী?

মোঃ জুয়েল হোসেন || জেলা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ 28 Apr, 2021 5:31 PM

কেন-এভাবে-বদলে-যাচ্ছে-আমাদের-পৃথিবী-2021-04-28-6089477b9a581.png

পৃথিবীর সবকিছুই যেন দিনে দিনে মানুষের বসবাসের প্রতিকূলে চলে যাচ্ছে। পরিস্থিতি এখন এমন পর্যায়ে চলে গিয়েছে যে মানুষ ঠিকমতো নিশ্বাস পর্যন্ত নিতে পারছেনা।

বিগত ২০ বছর আগের পৃথিবীর দিকে তাকালে বর্তমানের সাথে কোনো মিল খুজে পাওয়া যাবেনা। সবকিছুই যেন এখন অচেনা। সময়ের সাথে সাথে সবচেয়ে বেশি সেটা পরিবর্তন হয়েছে সেটা আবহাওয়া এবং জলবায়ু। মূলত এই জলবায়ুর পরিবর্তনটাই সবচেয়ে বড় ইস্যু হয়ে দাড়িয়েছে।কেননা এটার ফলে মানুষের জীবনযাত্রার উপরে বিরূপ প্রভাব পরেছে।

জলবায়ু পরিবর্তন এর ফলে বায়ুমন্ডলে গ্রীনহাউজ গ্যাসের পরিমান বৃদ্ধি পাওয়ায় তাপমাত্রা বেড়ে গেছে। ফলে পৃথিবী দিনদিন উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। প্রতিবছরই হচ্ছে উষ্ণতম বছর। তাছাড়া তাপমাত্রা বৃদ্ধি ফলে বৃষ্টিপাত কমে যাওয়ায় বহু স্থানে তীব্র খরাও তৈরি হয়েছে। কৃষি কাজ ব্যপকভাবে ব্যহত হচ্ছে। খাদ্য উৎপাদন ব্যহত হওয়ায় অনেক স্থানে খাদ্য ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। পৃথিবী দিনদিন আধুনিক হওয়ায় বেড়েছে কলকারখানা। কিন্তু আমরা সেগুলোকে পরিবেশ বান্ধব হিসেবে গড়ে তুলতে পারিনি।

এসব কলকারখানা থেকে বিষাক্ত তেজস্ক্রিয়তা পরিবেশে ছড়িয়ে পরে আমাদের বায়ুমন্ডলের ওজন স্তরের ক্ষতি করছে। ওজন স্তর সূর্যের আলোর অতি বেগুনি রশ্মিকে সরাসরি পৃথিবীতে আসতে দেয়না; বলতে গেলে আলোটা ফিলটার হয়ে পৃথিবীতে আসে কিন্তু ওজন স্তর ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় সেই ক্ষতিকারক রশ্মি সরাসরি পৃথিবীতে চলে আসছে যা আমাদের শরীরে ক্যান্সারের কারন হচ্ছে। তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে মেরু অঞ্চলের বরফ গলতে শুরু করেছে। ফলে বাড়ছে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা।

এতে উপকূলীয় এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা থাকলেও সবচেয়ে ভয়ের কথা হচ্ছে এসব বরফে জমে থাকা শতশত বছরের পুরোনো ভাইরাসগুলো নতুন করে পৃথিবীতে মহামারি তৈরী করতে পারে। সমুদ্র পৃষ্ঠের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন রকমের প্রাকৃতিক দূর্যোগ বেড়ে গেছে।প্রতিবছরই শক্তিশালী সব ঘূর্ণিঝড় তৈরি হচ্ছে। পাশাপাশি আরেকটি জিনিস হচ্ছে এখন প্রকৃতি এমন আচারন করছে যে শীতের সময়ে শীত কম আবার বৃষ্টির দিনে খরা।ফলে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে।

এই তাপমাত্রা বাড়ার কারন কি? এই তাপমাত্রা বাড়ার একমাত্র কারন হচ্ছে নির্বিচারে বনভূমি নিধন। গাছপালা না থাকার কারনে যেমন তাপমাত্রা বাড়ছে তেমনি বৃষ্টিপাতও কমে গেছে। করোনার লকডাউন সবকিছু বন্ধ থাকায় প্রকৃতি কিছুটা তার আগের রুপে ফিরেছিলো। কমেছিলো দূষনও। কিন্তু সবকিছু বন্ধ রেখে তো আর এটার সমাধান হবে না! তাই আমাদের উচিত হবে যেকোনো কিছু তৈরীর সময় সেটা পরিবেশ বান্ধব হিসেবে তৈরি করা। বেশি করে গাছ লাগানো।

মোটকথা আমরা যদি সচেতন না হই তাহলে আমরা নিজেরাই আমাদের এই পৃথিবীকে বসবাসের অযোগ্য বানিয়ে ফেলবো। নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে লেখা। ভূল শুদ্ধ ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। কলমে: মো: জুয়েল হোসেন, সিরাজগঞ্জ।


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ