হোম লাইফস্টাইল 'খাটো ছেলেদের সাথে মেয়েরা প্রেম করতে চায়না'

'খাটো ছেলেদের সাথে মেয়েরা প্রেম করতে চায়না'

অনলাইন ডেস্ক 10 Dec, 2020 3:28 PM

'খাটো-ছেলেদের-সাথে-মেয়েরা-প্রেম-করতে-চায়না'-2020-12-10-5fd1ea45a4146.jpg

সাদা দৃষ্টিতে প্রশ্নটা শুনে অনেকের খারাপ লাগতে পারে, মনে হতে পারে মেয়েদেরকে/খাটো মানুষদেরকে এই প্রশ্নটি কটাক্ষ করছে। কিন্তু কিছু ঘাটাঘাটি করে বুঝতে পারলাম এই প্রশ্নটা অনেকের জন্য গুরুত্ব বহনকারী এবং এর উত্তর ভালবাসা/প্রেম এর উৎস সম্পর্কে আমাদের নতুন করে ভাবতে শেখাবে।

যে ছেলেটা আর্মি অফিসার বা ডাক্তার তারা খাটো হোক বা লম্বা, যেহেতু তারা সামাজিক ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তা দিতে সক্ষম তাই মেয়েরা তাদেরকে নির্বাচন করার ক্ষেত্রে খুব একটা ভাবে না। কারণ বর্তমানে সামাজিক ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তাই টিকে থাকার মূল ভিত্তি। আদিম বা মধ্যযুগে শারীরিক শক্তির বিষয়টা খুব প্রাধান্য পেলেও এখনকার সমাজে সামাজিক ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তাই মূল ফ্যাক্টর।

কিন্তু সামাজিক ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তা দিতে পারছে না এরকম দুইটা ছেলের তুলনার সময় মেয়েরা/তার পরিবার অবশই দেখতে সুন্দর ও লম্বা ছেলেদের পছন্দ করবে। দুইটি কারণে।

১। পরিসংখ্যানে দেখা যায় দেখতে সুন্দর ও লম্বা ছেলেরা আত্মবিশ্বাসী হয়, মানুষের নজর কারতে পারে(মানে সবার মাঝে stand out করে) এবং সহজেই তাদের ক্যারিয়ার গড়তে পারে, অন্ন্যদিকে খাটো বা কুৎসিত ছেলেদের মন যতই ভালো হোক তারা আত্মবিশ্বাসী হয় না, ও মানুষের নজর কারতে পারে না।

২। প্রাগৈতিহাসিক কাল ধরে চলে আসা প্রয়োজনের ভিত্তিতে আমাদের ডিএনএতে এই তথ্য সংরক্ষিত আছে যে লম্বা ছেলেরা শক্তিশালী হয় বা বিপদে আপদে আমাদের আগে জানান দিতে পারো। (দৃষ্টিসীমা উঁচুতে হবার কারণে তারা অনেক কিছু আগে দেখতে বা বুঝতে পারতো)। এই সুত্র মতে আমাদের মনে স্বাভাবিকভাবেই লম্বা ছেলেরা বেশি পছন্দনীয়।

অ্যামেরিকার স্যাম বেকার বলছিলেন, "উচ্চতা আপনার জীবনের ওপর অনেক প্রভাব ফেলে। সত্যি বলতে কি অনেক মেয়েই তাদের চেয়ে খাটো ছেলেদের সাথে প্রেম করতে চায়না। সবচেয়ে কষ্টকর যে কথাটা আমার মাথায় ঘুরতো তা হলো - আমি হয়তো জীবনে কাউকে বিয়ে করতেই পারবো না।"

স্যামের বয়স ৩০। তিনি থাকেন নিউইয়র্কে। তিনি জানতেন তার উচ্চতা বৃদ্ধির বয়স চলে গেছে, কিন্তু তবুও তার একটা আশা ছিল যে হয়তো তিনি আরো খানিকটা লম্বা হবেন।

"আমার মনে হতো, লম্বা হবার সাথে জীবনে সাফল্যের সম্পর্ক আছে। তাই আমি আমার নিজের মতো করে ব্যাপারটার একটা সমাধানের উদ্যোগ নিলাম।"

খোঁজখবর নিয়ে, কিছু গবেষণা করে তিনি দেখলেন,উঁচু হিলের জুতো পরা বা স্ট্রেচিং করার মত সমাধানে তিনি আকৃষ্ট বোধ করছেন না। কিন্তু পা লম্বা করার অপারেশনের কথা জানার পর ব্যাপারটা তাকে চমৎকৃত করলো।

তিনি এ নিয়ে খোলাখুলি কথা বললেন তার মায়ের সাথে, এবং ঝুঁকিগুলো বিবেচনা করলেন।


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ