হোম সাহিত্য ও সংস্কৃতি 'কলম' নিয়ে কিছু কথা

'কলম' নিয়ে কিছু কথা

মোহাম্মদ হারুন মিয়া/ সহকারী পরিচালক ( UGC ) 21 Jan, 2021 3:51 PM

'কলম'-নিয়ে-কিছু-কথা-2021-01-21-60094e95eaf98.jpg

Pen এর বাংলা প্রতিশব্দ কলম। যার দ্বারা মানুষ লেখালেখির কাজ সম্পন্ন করে থাকে তাকেই সাধারণ ভাষা কলম বলে অভিহিত করা হয়। কলম এর প্রাচীনতম পূর্বসূরি ছিলো সম্ভবত গুহামানবদের হাতে রক্ষিত তীক্ষাগ্রূ পাথর। যাকে গুহার দেয়ালে বসিয়ে বিশ্বের সর্বপ্রথম চিত্রকলা তারা আমাদের উপহার দিয়েছিলো। ছবি আঁকার পাশাপাশি শিকারের উদ্দেশ্যেও এই পাথরই তাঁদেরকে ব্যবহার  করতে দেখা গেছে। আজকে কাগজের বুকে কলম দিয়ে যে পদ্ধতিতে আমরা লেখি তার জন্য গ্রিকদের কাছেই আমরা ঋণী। গ্রিক অধিবাসীরা ধাতু, হাড় এবং হস্তীদন্ত থেকে তৈরি করতো সূঁচালো (ধারালো) অগ্রভাগবিশিষ্ট এক ধরনের শলাকা (stylus)। অতপর মোমের আবরণে মোড়ানো ফলকের উপর এটি দিয়েই লেখার কাজ সমাপ্ত করতো তারা।

কলম হিসেবে নলখাগড়া ব্যবহারের ইতিহাস অতিপ্রাচীন। প্রাচীনকালে মিশরীয়রা নলখাগড়া দিয়ে প্যাপিরাসের উপর লিখতো। স্টিভেন রজার ফিশার “এ হিস্টরি অব রাইটিং” গ্রন্থে জানিয়েছেন - নলখাগড়া দিয়ে পার্চমেন্টের উপর লেখার প্রচলন   খ্রিস্টপূর্ব ৩০০০ সালেও প্রচলিত ছিলো। কলম হিসেবে নলখাগড়ার ব্যবহার মধ্যযুগ পর্যন্ত টিকে ছিলো, যদিও খ্রিস্টীয় সপ্তম শতক থেকেই কলম হিসেবে ধীরে ধীরে এর স্থান দখল করে নেয় পাখির পালক। কলম হিসেবে পাখির পালকের প্রথম ব্যবহার হয় খ্রিস্টপূর্ব ৫০০ অব্দে। যখন হাঁসের ডানার পালক-কে মানুষ লেখার কাজে ব্যবহার করতো। পালকের উপরিভাগকে হাত দিয়ে ধরার উপযোগী করার জন্য শক্ত এবং ভারী করা হতো, আর অগ্রভাগকে করা হতো সূঁচালো। এই কলম (Quill pens) নামে পরিচিত ছিলো এবং অস্টাদশ শতকে এসে ইস্পাতের নিববিশিষ্ট (Steel) কলম আবিষ্কার হওয়ার আগ পর্যন্ত এই পালকের কলমই ব্যবহৃত হতো। অস্টাদশ শতকের শেষের দিকে উদ্ভাবকরা ঝর্ণা কলমের (Fountain pen) এক ধরনের প্রাথমিক সংস্করণ তৈরি করেন। প্রথম দিকের ঝর্ণা কলমগুলোতে একবারে খুবই অল্প পরিমাণ কালি ধরানো যেতো এবং লেখার মাঝে কলমগুলোকে বার বার কালিতে চুবিয়ে নিতে হতো। লুই এডসন ওয়াটারম্যান ঝর্ণা কলমের প্রথম আবিষ্কার হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেন। তিনি ১৮৩৩ সালে কৌশিক নালীভিত্তিক (Capillary) ঝর্ণা কলম উদ্ভাবন করেন। যাতে কালির প্রবাহ পূর্ববতী ঝর্ণা কলমগুলোর চাইতে অনেক সুন্দরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যেতো। কলাম আবিষ্কারের পর সর্বপ্রথম বলপয়েন্ট (Ball Point) বা বলপেন এর উদ্ভাবন ১৯৮৮ সালে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন জে. লাউড এই বলপয়েন্ট বা বলপেন আবিষ্কারের কৃতিত্ব অর্জন করেন। বলপেন এর উৎকর্ষ সাধনে লাজলো বিরো এবং মিল্টন রেনল্ডস এর অবদানও কোনো অংশে কম নয়।

কলম নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের একটি অন্যতম উপাদান কলম। কলম সৌন্দয্যের প্রতীক। শিক্ষিত জনমাত্রই কলমের সংস্পশে আসতে হয়। অফিস-আদালত, শিল্প-কলকারখানা, দোকান-পাঠ সর্বত্রই কলমের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। বর্তমানে বাজারে হরেক রকমের কলম দেখতে পাওয়া যায়। ছোট, মাঝারি ও বড় আকারের। দামের দিক থেকে কোনোটা দামী, কোনোটা আবার একটু কম। ইদানিংকালে কলম-কে ভদ্রোচিত সৌজন্যতার প্রতীক হিসেবেও ব্যবহার করা হচ্ছে।

লেখক পরিচিতি
মোহাম্মদ হারুন মিয়া
সহকারী পরিচালক
বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জরী কমিশন
আগারগাঁও, ঢাকা-১২০৭


আরও :

আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

আরও সংবাদ